1. admin@sonalivor.net : Admin : Shaikh Iqbal Hossain
  2. m.amzadkhan@yahoo.com : M Amzad Khan : M Amzad Khan
বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০২:১৬ পূর্বাহ্ন
বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০২:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
গাজীপুরে গফরগাঁও কল্যাণ সমিতির ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত ‌কি ঘট‌তে যা‌চ্ছে ইমরান খা‌নের বিরু‌দ্ধে! গাজীপুরের ইউনাইটেড মডেল একাডেমীতে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত গাজীপুর মহানগর প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসে সকল শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২ তম জন্মবার্ষিকীতে গাজীপুর জেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের আনন্দ র‌্যালী অনুষ্ঠিত গাজীপু‌রে এ‌বি পা‌র্টির ২৮ সদস‌্য বি‌শিষ্ট যৌথ ওয়া‌র্কিং ক‌মি‌টি গ‌ঠিত ফখরুল-অলির বৈঠক, আসতে পারে নতুন ঘোষণা গাজীপুরে বাংলাদেশ মানব কল্যাণ এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ২১ শে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত রাষ্ট্রভাষাকে বাঁচাতে বাংলাভাষা উন্নয়ন বোর্ড অপরিহার্য : অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হক প্রাথমিক বিদ্যালয় খুললেও বন্ধ থাকবে প্রাক-প্রাথমিক

যে কারণে ভারতের একটি গ্রামের সব পুরুষ দু’টি বিয়ে করেন

সোনালী ভোর ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : শনিবার, ৬ নভেম্বর, ২০২১
  • ১৪৪ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্ক : বিয়ে নিয়ে প্রায়ই কিছু অদ্ভূত রীতি ও প্রথার কথা শোনা যায়। যেমন ভারত-পাকিস্তান সীমান্তের কাছে রাজস্থানের বাড়মের জেলার অন্তর্গত দেরাসর গ্রামের প্রত্যেক পুরুষ দু’টি করে বিয়ে করেন। বিষয়টি শুনতে যতটা অদ্ভুত লাগছে তার চেয়েও কয়েকগুণ বেশি অদ্ভুত লাগবে এই রীতির নেপথ্য কারণ জেনে।

বড়জোর ৬০০ জনের বসবাস দেরাসর গ্রামে। সেখানে প্রতিটি পুরুষের অন্তত দু’জন করে স্ত্রী রয়েছে! গ্রামের বাসিন্দাদের বিশ্বাস, প্রথম স্ত্রীর গর্ভে নাকি কোনও স্বামীরই সন্তান হবে না। সন্তানের মুখ দেখতে গেলে নাকি দ্বিতীয় বিয়ে করতেই হবে। এই অদ্ভুত বিশ্বাস থেকেই দ্বিতীয় বিয়ে করেন গ্রামের তারা।

জানা গেছে, এমন রীতির সূত্রপাত অতীতের একটি ঘটনা থেকে। গ্রামের এক ব্যক্তির নাকি কিছুতেই সন্তান হচ্ছিল না। পরে তিনি দ্বিতীয় বিয়ে করতেই সন্তানলাভ করেন। পরে বিষয়টি রীতিতে পরিণত হয়। দেখা যায়, যখনই এমন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হতেন গ্রামের কোনো পুরুষ, তার দ্বিতীয় বিয়ে দেয়া হতো। আর তাতেই নাকি মিলত ফল। যদিও এখন ওরকম সমস্যা ছাড়াই দুই বিয়ে করেন সেখানের পুরুষরা।

এছাড়া দুই বিয়ের আরো একটি কারণ- ওই গ্রামের তীব্র পানির সঙ্কট। অন্তত পাঁচ কিলোমিটার হেঁটে পানি আনতে হয় নারীদের। তাই অন্তঃসত্ত্বা হলে কোনো নারীর পক্ষেই হেঁটে পানি আনা সম্ভব নয়। সে কারণেও দ্বিতীয় বিয়ে করে থাকেন পুরুষরা।

দুঃখজনক হলেও সত্য, প্রথম স্ত্রীকে কোনো অধিকারই দেয়া হয় না। তারা বরং বাড়ির পরিচারিকার মতো জীবন কাটিয়ে থাকেন। প্রথম স্ত্রীকে বলা হয় ‘জল স্ত্রী’। সন্তান ধারণের অধিকারও পান না তারা। কোনো পুরুষ যদি এই রীতির বিরোধিতা করেন তা হলে তার বিরুদ্ধে পুরো গ্রাম একজোট হয়।

রীতি না মানলে নিজের পরিবারও পরিত্যাগ করে বাড়ির কর্তাকে। গ্রাম থেকেই বিতাড়িতও করা হয় তাকে। এছাড়া দ্বিতীয় স্ত্রীও যদি সন্তান ধারণ না করে থাকেন সে ক্ষেত্রে স্বামীকে আরো একটি বিয়ে করতে হয়। উপার্জনকারী স্বামীকে পরিবারের পুরো দায়িত্ব নিতে হয়।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

One thought on "যে কারণে ভারতের একটি গ্রামের সব পুরুষ দু’টি বিয়ে করেন"

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © Sonali Vor
Themes customize By Theme Park BD